A বিশেষজ্ঞ ডাক্তার

লিভার বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ময়মনসিংহ তালিকা মোবাইল নাম্বার ও চেম্বারের ঠিকানা

ময়মনসিংহ এমন একটি বিভাগ যেখানে সর্বস্তরের সকল ধরনের মানুষের বসবাস। বাংলাদেশের মানুষের খাদ্যাভ্যাস এবং ভেজাল খাবারের কারণে প্রায় অধিকাংশ মানুষের পেটের সমস্যা দেখা দিচ্ছে। লিভারের সমস্যা ব্যথার সমস্যার পরে জাতীয় রোগ হিসেবে দেখা দেবে আস্তে আস্তে তার কারণ হলো বাংলাদেশে প্রচুর পরিমাণে ভেজাল খাবার পাওয়া যাচ্ছে।

আমরা যারা খাবার তৈরি করি তারা অর্থের লোভে এতটাই মোহ হয়ে গেছি যে এতটাই বিষাক্ত এবং এতটাই ভেজাল খাবার মানুষদের খাওয়াচ্ছি যেটা আমাদের বিবেককে একবার নাড়া দিচ্ছে না। এই খাবারগুলোকে মাঝেমধ্যে বিষ সমতুল্য বলা হয় তারপরও আমরা ভেজাল দিতে এক পা পিছে হচ্ছি না। আবার এরকম নয় যে আমরা খাবারের দাম কম দিচ্ছি সঠিক দাম দিয়ে আমরা খাবার খাচ্ছি খারাপটা যেটা একেবারেই অন্যায়।

লিভার ও পরিপাকতন্ত্র বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ময়মনসিংহ এর তালিকা

আমরা যখন আমাদের লিভার কে খারাপ খাবার খেতে অভ্যস্ত করব তখন লিভারের সমস্যা এমনিতেই হবে। দেশের সবথেকে বেশি বিকৃত ঔষধ হচ্ছে গ্যাসের ঔষধ এবং এই গ্যাসের ঔষধ এতটাই অকার্যকর যে বাংলাদেশের যতটা গ্যাসের ওষুধ আছে কোন তাতে আপনার গ্যাস পুরোপুরি সারতে পারবে না। তাহলে বাস্তবতা এই দ্বারা আছে দেশের সবথেকে বেশি বিকৃত গ্যাসের ওষুধ দেশের সবথেকে অকার্যকর ওষুধ।

তার কারণ হলো আমরা যতই গ্যাসের ওষুধ খাই না কেন আমরা আমাদের লিভার কে খারাপ এবং পচা বাঁশি খাবার থেকে বিরত রাখতে পারিনা। এতে করে যেই গ্যাসের ওষুধ খায় না কেন আমাদের সেই লিভার সেটাকে কাজে লাগাতে পারে না এবং গ্যাসের ওষুধ হয়ে যায় অকার্যকর। তবে এর মাঝে সুখবর হলো ময়মনসিংহ বিভাগে এমন কিছু বড় বড় পরিপাকতন্ত্র ও লিভার বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আছে যাদের পরামর্শে আপনি পুরোপুরি সুস্থ হতে পারেন।

ময়মনসিংহ লিভার বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের চেম্বারের ঠিকানা এবং মোবাইল নাম্বার

লিভারের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে ময়মনসিংহ শহরে আপনাকে এই তালিকা অনুযায়ী একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের কাছে যেতে হবে। শুধু ডাক্তারের কাছে গেলেই হবে না তাদের পরামর্শ অনুযায়ী আপনাকে চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করতে হবে এবং লিভারের ক্ষেত্রে অবশ্যই যেটা করণীয় সেটা হচ্ছে খাবারের অভ্যাস এর পরিবর্তন করতে হবে। কোনভাবে তেল চর্বি জাতীয় খাবার খাওয়া যাবেনা এবং বাইরের খাবার একেবারেই বর্জন করতে হবে।

আচ্ছা বলুন তো আপনাকে যদি এক বোতল বিষ দেওয়া হয় এবং সেটা খেতে বলা হয় তাহলে আপনি কি সেটা জেনে শুনে খাবেন??? আমার মনে হয় অবশ্যই না একজন সুস্থ মানুষ কোনভাবেই সেই বিষ খাবেনা। তবে আমরা জেনেশুনে এবং সুস্থ মস্তিষ্কে প্রতিদিন এই বাইরের ভেজাল খাবার খাচ্ছি যেটা বিষ সমতুল্য। তাই আমাদের উচিত বাইরের খাবার একেবারে পরিহার করা এবং সব সময় ব্যালেন্স খাবার খাওয়া। আর যারা ময়মনসিংহে লিভার ও পরিপাকতন্ত্রের বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের কাছে যেতে চাচ্ছেন তারা আমাদের নিচের তালিকা অনুসরণ করুন এবং সঠিক জায়গাতে চলে যান।

প্রফেসর ডাক্তার চিত্ত রঞ্জন দেবনাথ

তিনি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের লিভার বিভাগের প্রধান ও অধ্যক্ষ। প্রফেসর ডাক্তার চিত্ত রঞ্জন দেবনাথ একজন লিভার বিশেষজ্ঞ।বর্তমানে তিনি ময়মনসিংহ পপুলার ডায়াগনিস্টিক সেন্টারে বসেন। তার শিক্ষাগত যোগ্যতা- এমবিবিএস, এমসিপিএস(মেডিসিন), এমডি(হেপাটলোজি), এমএসিপি, এফএসিপি, এফএসিপি( ইউএসএ), এমআরসিপিএস, এফআরসিপি(ইডিন)। তার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন ০৯৬৬৬৭৮৭৮১৪, ০৯৬২৩৭৮৭৮১৪ নাম্বারে। তিনি প্রতি শনিবার বিকাল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত রোগী দেখেন।
প্রফেসর ডাক্তার সাইয়েদুর রহমান
তিনি শের-এ বাংলা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের লিভার বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান । প্রফেসর ডাক্তার সাইয়েদুর রহমান একজন লিভার বিশেষজ্ঞ।বর্তমানে তিনি ময়মনসিংহ পপুলার ডায়াগনিস্টিক সেন্টারে বসেন। তার শিক্ষাগত যোগ্যতা- এফসিপিএস (মেডিসিন), এমডি (হেপাটোলজি), এফআরসিপি (এডিন), এফআরসিপি (গ্লাসগো), এফএসিপি (ইউএসএ), ডাব্লুএইচও ফেলো ইন মেডিসিন (থাইল্যান্ড)। তার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন ০৯৬৬৬৭৮৭৮১৪, ০৯৬২৩৭৮৭৮১৪ নাম্বারে। তিনি প্রতি রবিবার, সোমবার, বুধবার ও বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত রোগী দেখেন।
ডাক্তার মোহাম্মদ রুহুল হায়দার
তিনি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের লিভার বিভাগের ডাক্তার । ডাক্তার মোহাম্মদ রুহুল হায়দার একজন লিভার বিশেষজ্ঞ।বর্তমানে তিনি ময়মনসিংহ পপুলার ডায়াগনিস্টিক সেন্টারে বসেন। তার শিক্ষাগত যোগ্যতা- এমবিবিএস (এমএমসি), বিসিএস (স্বাস্থ্য), এমডি (হেপাটোলজি), এমএসিপি (আমেরিকা), থেরাপিউটিক এবং ইন্টারভেনশনাল এন্ডোস্কোপিস্ট। তার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন ০৯৬৬৬৭৮৭৮১৪, ০৯৬২৩৭৮৭৮১৪ নাম্বারে। তিনি প্রতি শনিবার থেকে বৃহস্পতিবার বিকাল ৪.৩০টা থেকে রাত ৮.৩০টা পর্যন্ত রোগী দেখেন।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত লেখা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *