A ওষুধ খাওয়ার নিয়ম

ঘুমের ওষুধ খাওয়ার নিয়ম

আমরা এবার আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি ঘুমের ওষুধ খাওয়ার নিয়ম তবে ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কোন ঘুমের ওষুধ সেবন করা উচিত নয়। আজ আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটে ঘুমের ওষুধের সকল তথ্যগুলো পেয়ে যাচ্ছেন এবং এখান থেকে আপনি সঠিক তথ্য সংগ্রহ করে নিয়ে জানতে পারেন ঘুমের ওষুধের কি কি উপকারিতা ও অপকারিতা রয়েছে এবং ঘুমের ওষুধ খাওয়ার নিয়ম। বিভিন্ন সমস্যার জন্য বিভিন্ন রকমের ঘুমের ওষুধ দিয়ে থাকে ডাক্তার। 

এবং এই সকল ঘুমের ওষুধ ডাক্তারের নিয়ম অনুযায়ী খেতে হয়। ঘুমের ওষুধ নানা কারণে মানুষ খেয়ে থাকে যেমন যাদের ঘুম হয় না যারা ডিপ্রেশনে থাকে যাদের সাইক্রেটিক প্রবলেম রয়েছে যাদের স্ট্রোক হয়েছে হার্ট অ্যাটাক হয়েছে প্যারালাইসিস আছে এই সকল রোগীদের জন্য ঘুমের ওষুধ প্রয়োজন পড়ে। কারণ তাদের শরীর এতটাই খারাপ হয়ে যায় তারা ঘুমের ওষুধ ছাড়া ঘুমাতে চায় না বা তাদের ঘুম হয় না এই জন্য ডাক্তার এই সকল রোগীদের ঘুমের ওষুধ দিয়ে ঘুমানোর পরামর্শ দিয়ে থাকেন। 

আবার ঘুমের ওষুধের যেমন উপকার আছে তেমন আছে অপকার। আপনি যদি অতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ খেয়ে থাকেন তাহলে আপনার মৃত্যুর ঝুঁকি হতে পারে সে জন্য ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন কেউ ঘুমের ওষুধ বিক্রি করতে চায় না। অতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ খেলে আপনার ব্রেনের রক্তনালী চলাচল বন্ধ করে দেয় যার ফলে আপনার স্ট্রোক হতে পারে প্যারালাইসিস হতে পারে আরো নানারকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। আপনি যদি সঠিক নিয়মে ঘুমের ওষুধ খেতে চান তবে আপনাকে ঘুমানোর দুই ঘন্টা আগে ঘুমের ওষুধ খেতে হবে। যখন আপনি ঘুমানোর ২ ঘণ্টা আগে ঘুমের ওষুধ খাবেন আস্তে আস্তে আপনার ঘুমটা বেশ গাড় হয়ে আসবে এবং আপনি খুব ভালো একটি ঘুম দিবেন। 

যে সকল রোগীরা নিয়মিত ঘুমের ওষুধ খায় তারা ঘুমের ওষুধ ছাড়া আর কোনদিনই ঘুমাতে পারে না বা ঘুমালেও তাদের ঘুমটি পরিপূর্ণ হয় না। সেজন্য নরমাল মানুষের নিয়মিত ঘুমের ওষুধ খাওয়ার কোন প্রয়োজন নেই যদি তার এমনিতেই ঘুম হয়। যখনই কোন ব্যক্তি ঘুমের ওষুধ খাওয়ার অভ্যাস করে ফেলবে সেই ব্যক্তি ওষুধ ছাড়া আর ঘুমাতে পারবে না। অনেক সময় অনেক মানুষ ঘুমের ওষুধ খেয়ে নেশার মতো খাই বা ঘুমের ওষুধ খেয়ে নেশা করে তাদের জন্য এটা খুব ক্ষতিকর। বিভিন্ন রকমের ঘুমের ওষুধ আছে এবং বিভিন্ন রকমের রোগের জন্য বিভিন্ন রকমের ঘুমের ওষুধ দেয়া হয়। 

সব মানুষের ঘুমের পরিমাণ একরকম হয় না তাই কারো বেশি পরিমাণ পয়েন্ট দেয়া হয় আবার কারো কম পয়েন্টের দেয়া হয়। তবে সব রকমের ঘুমের ওষুধ এই কাজ হয়। যারা নিয়মিত ঘুমের ওষুধ ব্যবহার করে তাদের আচরণের কিছু পরিবর্তন দেখা দেয় যেমন দিন দিন তাদের ব্যবহার হয়ে যাবে খারাপ ভালো কথা বললেও তাদের সাথে খারাপ মনে হবে তারা যে কাউকে সহ্য করতে পারবেনা। ঘুমের ওষুধ খেলে শরীর সবসময় দুর্বলতা অনুভব করে এবং যেকোনো সময় ক্লান্ত হয়ে পড়ে ঘুমের জন্য এবং সেই পর্যাপ্ত ঘুমটি না হওয়া পর্যন্ত মানুষটি খিটখিটে হয়ে থাকে। 

যারা ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ঘুমের ওষুধ খায় তাদের নানা রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে যেমন কিডনির রোগ নিম্ন রক্তচাপ শরীরের ক্লান্তি অনুভব খিচুনি ইত্যাদি। ঘুমের ওষুধ খেলে শরীরের রোদ প্রতিরোধ ক্ষমতাও কমে যায়।ঘুমের ওষুধ বিভিন্ন দামেরও রয়েছে যার যেটা প্রয়োজন সে সেটা ব্যবহার করেন। তবে আপনারা কেউ ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন কোনো ওষুধ সেবন করবেন না। আর ঘুমের ওষুধ নিয়ে মানুষের নানারকম বিপদে হয় সেজন্য প্রেসক্রাইব ছাড়া কোন রকম কোন ঘুমের ওষুধ খাওয়া যাবেনা তাহলে আরো সমস্যা বাড়বে এবং মানুষের ক্ষতি হবে। তাই সুস্থ থাকতে হলে সতর্ক থাকতে হবে।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত লেখা

Leave a Reply

Your email address will not be published.