AA রক্ত সংক্রান্ত

মুখ দিয়ে রক্ত পড়লে কি করতে হবে

মুখ দিয়ে রক্ত পড়লে মানুষ নানা রকম ভাবে চিন্তায় পড়ে যায় কারণ এটা যেকোনো রোগের লক্ষণ হতে পারে সেজন্য যখন আপনার মুখ দিয়ে রক্ত পড়বে তখন আপনি কি করবেন এমন নানা রকম চিন্তা আপনার মাথায় চলে আসে। তবে প্রথমে বলে রাখা ভালো যখনই আপনার মুখ দিয়ে রক্ত পড়বে তখন আপনি ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহণ করবেন এবং ডাক্তারের মাধ্যমে চিকিৎসা গ্রহণ করবেন তবে আপনি সবথেকে ভালো ফলাফল পাবেন। 

তারপরেও আপনি ঘরোভাবে কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন মুখ দিয়ে রক্ত পড়লে। এই পদ্ধতিগুলোর জন্য আপনাকে আমাদের এই লেখাগুলো মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে এবং আমাদের সাথে শেষ পর্যন্ত থাকতে হবে তবে আপনি জানতে পারবেন। প্রথমে আপনাকে জানতে হবে কেন আপনার মুখ দিয়ে রক্ত পড়ছে এই রক্ত পড়ার কারণগুলো কি কি হতে পারে। অনেক সময় নাকের নাসিকা গ্রন্থি পাতলা আবরণ ফেটে যাওয়ার ফলে আপনার মুখ দিয়ে রক্ত বের হতে পারে আবার অনেক সময় জ্বর কৃমি সংক্রমণ সমস্যার জন্য আপনার মুখ দিয়ে রক্ত বের হতে পারে। 

আবার অনেক মানুষের যারা ক্যান্সারে আক্রান্ত তাদের মুখ দিয়ে রক্ত বের হতে পারে। কাশির সাথে মুখ দিয়ে রক্ত বের হতে পারে যাদের অতিরিক্ত কাশি। এই সকল বিষয়গুলো বা লক্ষণগুলো আপনাকে সঠিকভাবে জানতে হবে তারপরে আপনাকে ভাবতে হবে কোন সমস্যার জন্য আপনার মুখ দিয়ে রক্ত বের হচ্ছে। তবে মুখ দিয়ে রক্ত আসা আর রক্ত বমি কিন্তু এক জিনিস নয় এটা দুইটা দুইরকম সমস্যার জন্য হতে পারে। 

কফি যখন রক্ত আসে তখন মূলত রক্ত আসার ক্ষেত্রে আঠালো কফ এবং তাতে রক্তের অল্প কিছু অংশ বোঝায়। কিন্তু রক্ত বমির ক্ষেত্রে সমস্যা পাকস্থলীতে বোঝায়। যখন পাকস্থলীতে বড় কোন রোগের সংক্রমণ ঘটে তখন এই রক্তভূমি হতে পারে কখনো এ রক্ত কালো হতে পারে কখনো স্বাভাবিক রঙের হতে পারে সাধারণত হজমের সমস্যা এবং পাকস্থলীর নানা সমস্যার কারণে এটা হয়ে থাকে।

আর যদি হালকা গোলাপী রংয়ের কোক আসে তাহলে বুঝতে হবে এটা ফুসফুসের সমস্যা এক্ষেত্রে আপনার শরীরের কোন গুরুত্বপূর্ণ ও চিন্তা করার রোগ বাসা বাঁধতে পারে তাই আপনাকে ডাক্তারের পরামর্শ এবং চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে যত দ্রুত সম্ভব। আবার যখন মানুষের ক্যান্সার হয় তখনও মুখ দিয়ে রক্ত বের হতে থাকে সেজন্য আপনাকে সঠিকভাবে পরীক্ষানিরীক্ষা করার পরে চিকিৎসা নিতে হবে। আবার যদি সর্দিতে রক্ত আসা বুকে ব্যথা হওয়া ওজন রাস পাওয়া রাতের বেলায় অতিরিক্ত ঘাম সাধারণ কাজকর্ম করার সময় শ্বাসকষ্ট ইত্যাদি সমস্যা দেখা যায় তাহলে চিকিৎসকের সাথে কথা বলুন।

এইরকম সমস্যাগুলো আপনি কিভাবে বুঝতে পারবেন বা মুখ দিয়ে রক্ত  আসলে আপনি কি কি করবেন তা তাহলে আপনার পরিবারের এমন কোন সমস্যা আগে ছিল কিনা সেটা জানার চেষ্টা করবেন এবং সমস্যা আরো ভালোভাবে বুঝতে এক্সট্রে সিটি স্ক্যান এবং ইউরিন টেস্ট করতে পারেন। বাড়তি কিছু পরীক্ষা এই যেমন নাক বা মুখের মধ্যে দিয়ে পাই প্রবেশ করিয়ে ভেতরটা দেখা হবে যাতে করে সেখানে কোন সমস্যা আছে কিনা তা বোঝা যায়, পালস অক্সিম্যাট্রি মানে হল শরীরে অক্সিজেনের পরিমাণ বোঝার জন্য নানারকম রক্ত পরীক্ষা ইত্যাদি করবেন। 

এই সকল পরীক্ষাগুলোর মাধ্যমে আপনি বুঝতে পারবেন কোন সমস্যার মাধ্যমে আপনার এমন রক্তপাত হচ্ছে। এই সমস্যাগুলো প্রতিকার হিসেবে রক্তপাত বন্ধ করতে চিকিৎসক আপনাকে কিছু ওষুধ দিতে পারেন। তবে সব ক্ষেত্রে ওষুধ কাজ করে এমনটা নয় কিছু ক্ষেত্রে কেমোথেরাপি দিতে হয় যদি সেটা ক্যান্সারের দিকে এগিয়ে যায়। 

এই সকল পদ্ধতি গুলো অবলম্বন করলে আপনি সহজে চিকিৎসা পেয়ে যাবেন কারণ বর্তমান যুগে যদি আপনি রোগ নিয়ে ঘরে বসে থাকেন তাহলে নিজের ক্ষতি তাই যত দ্রুত সম্ভব ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে এবং চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে তবে আপনি সুস্থ থাকতে পারবেন।

এ সকল সমস্যাগুলো অনেক জটিল আকার ধারণ করতে পারে তাই এইগুলো অবহেলা করতে হবে না। আপনার নিজের সুস্থতা আপনার নিজের ব্যক্তিত্বের ওপর অসুখ হয়েছে বলে দেরিতে ডাক্তারের কাছে গেলে আপনার ক্ষতি হবে তাই সতর্ক হোন এবং সুস্থ থাকুন

আরো দেখুন

সম্পর্কিত লেখা

Leave a Reply

Your email address will not be published.