A ওষুধের ব্যবহার

বাচ্চাদের কাশির সিরাপের নাম কি

আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটে আসলে বাচ্চাদের কাশির সিরাপের সকল নাম পেয়ে যাবেন। বর্তমানে বাজারে নানা রকম কাশির সিরাপ রয়েছে কিন্তু তার মধ্যে কোনটি ভালো এবং কোনটা খেলে আপনার বাচ্চা খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ হতে পারবে সে সকল তথ্যগুলো শুধুমাত্র আমাদের ওয়েবসাইটে আসলেই পাবেন। কারণ আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে নিয়ে এসেছি বাচ্চাদের সবচেয়ে ভালো কাশির সিরাপের নাম যেটা আপনার বাচ্চা ব্যবহার করলে দুই দিনের মধ্যেই তার কাশি ভালো হয়ে যাবে। 

ছোট বাচ্চাদের নানারকম সমস্যা হয় তারা এমনভাবে চলাফেরা করে যে একটু অনিয়ম হলেই নানা রকম রোগের সৃষ্টি হয়ে যায়। তার মধ্যে বেশিরভাগ বাচ্চারা জ্বর সর্দি এবং কাশি নিয়ে সমস্যায় ভোগে। অল্প একটু ঠান্ডা লাগাতেই তাদের কাশি শুরু হয়ে যায় এবং সেই কাশি থেকে শ্বাসকষ্ট এবং হাঁপানের সৃষ্টি হয়। সেজন্য বাচ্চাদের এ সকল সমস্যার প্রতি বিশেষ নজর দিতে হবে এবং যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসা গ্রহণ করাতে হবে। অনেক সময় এই সকল ছোটখাট বিষয় নিয়ে কেউ হাসপাতালে যেতে চায় না বা ডাক্তারের নিকট চিকিৎসা গ্রহণ করতে চায় না। 

অন্য যে কারো মুখের কথা শুনে বিভিন্ন রকমের ওষুধ এনে বাচ্চাদের খাওয়ায় তবে এটা বাচ্চাদের জন্য অনেক ক্ষতিকর। কারণ সব ওষুধই সবার শরীরে কাজ করে না এবং এ সকল ওষুধের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নানা রকম ক্ষতি হতে পারে। সেজন্য সবসময় আপনাদের উচিত ভাল কোন ওষুধের নাম জেনে রাখা। তবে বর্তমানে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কোন ওষুধ বাচ্চাদের দেওয়া উচিত নয়। বাচ্চাদের যেকোনো সমস্যার জন্য ঘরে বসে না থেকে যত দ্রুত সম্ভব ডাক্তারের কাছে যেতে হবে এবং চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে। 

যখনই আপনি বাচ্চাদের কোন সমস্যার জন্য অবহেলা করবেন তখনই দেখবেন আপনার বাচ্চার রোগ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং এমন একটা পর্যায়ে চলে গিয়েছে যে সহজে ভালো হতে চাইছে না সেজন্য সবসময় সতর্ক থাকতে হবে। তবে আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে যে সকল ওষুধের নাম দিতে চলেছি এখান থেকে আপনি যেকোন একটি ওষুধ আপনার বাচ্চার সমস্যা হলে সেবন করাতে পারেন কারণ আমরা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী এ সকল ওষুধগুলো সিলেক্ট করেছে এবং আমাদের ওয়েবসাইটে দিয়েছি যেগুলো থেকে আপনারা অনেক উপকৃত হবেন। 

এই সকল ঔষধ গুলো কিভাবে আপনার বাচ্চাকে খাওয়াবেন সে সকল নিয়মগুলো আমরা দিয়েছি এই নিয়ম অনুযায়ী আপনার বাচ্চা কে ওষুধ খাওয়ালে আপনার বাচ্চা খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ হতে পারবে তার জন্য তাকে ডাক্তারের কাছে যাওয়া প্রয়োজন পড়বে না। তবে আপনারা কিছু ঘরোয়া উপায়ে শিশুদের কাশি ভালো করতে পারেন এতে কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই এবং খুব সহজেই এই সকল ওষুধগুলো আপনারা বানাতে পারেন। ঘরোয়া উপায় যদি আপনি আপনার বাচ্চার কাশি ভালো করতে চান বা কফ ভালো করতে চান তাহলে হাতের নাগালের মধ্যেই কিছু জিনিস রয়েছে যেগুলো ব্যবহার করলে খুব সহজেই আপনি কাশি ভালো করতে পারবেন। 

বাচ্চাদের কাশির সিরাপের যে সকল পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হয় যেমন তা বাচ্চার মধ্যে অস্বস্তি ভাব থাকে অতিরিক্ত খিটখিটে হয়ে যায় বেশি ঝিমাই ইত্যাদি। বাচ্চাদের কফ বা কাশি হলে বেশি দিন ঘরে বসে না থেকে যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে কারণ যখন তার বুকে কফ জমে যাবে তখন তার শ্বাসকষ্ট হবে বা শ্বাস নিতে সমস্যা হবে এবং ভেতরকার জীবাণু বাইরে বের হতে পারে না সেজন্য বাচ্চাদের কারো নানারকম ক্ষতি হয়। তাই বাচ্চাদের যে কোন সমস্যা হলে গুরুত্ব দিতে হবে এবং যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসা গ্রহণ করাতে হবে। আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যৎ সেজন্য শিশুদের ভবিষ্যৎ সুন্দর করতে হলে তাদের সুস্বাস্থ্য অধিকারী হতে হবে এবং সবাইকে বাচ্চাদের উপর বিশেষ নজর দিতে হবে তাদের যেন বৃদ্ধি ভালো হয় এবং তারা যেন সুস্থ থাকে।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত লেখা

Leave a Reply

Your email address will not be published.