ওষুধ খাওয়ার নিয়ম

নোরিক্স 1 পিল খাওয়ার নিয়ম

আপনারা যারা এ সকল সমস্যা নিয়ে ভুগছেন তাদের জন্য আমরা নিয়ে এসেছি সমাধান। তার জন্য আপনাকে আমাদের ওয়েবসাইটে লেখাগুলো মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে এবং পেয়ে যাবেন নোরিক্স পিল খাওয়ার সঠিক নিয়ম এবং পদ্ধতি। নোরিক্স সাধারণত ইমার্জেন্সি পিল। এটা সাধারণত অনিয়ন্ত্রিত প্রেগনেন্সি জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে। 

এই পিল কিভাবে খেতে হয় অনেক মানুষের এটা জানে না তাই আমরা আপনাদের জন্য এই পিল খাওয়ার নিয়ম দিয়েছি আমাদের ওয়েবসাইটে। অরক্ষিত সহবাসের পর যত তাড়াতাড়ি সম্ভব নোরিক্স 1 ওষুধ সেবন করতে হবে। এটা সাধারণত ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কাজ করে এবং আপনি যদি কোনভাবে ৭২ ঘণ্টার পরে খান তাহলে কোনভাবে কাজ করবে না এবং আপনি পড়ে যাবেন রিক্সের মধ্যে। সেজন্য ঠিক নিয়ম করে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে এই পিল একটা সেবন করে ফেলতে হবে। 

তবে ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কোন ওষুধ সেবন করা উচিত নয় তাই যেকোনো সমস্যার জন্য আপনি ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন এবং ডাক্তারের থেকে ওষুধ গ্রহণ করতে পারেন। তবে নিয়মিত জন্ম নিয়ন্ত্রণ ট্যাবলেট হিসেবে এটা কাজ করবে না সেজন্য আপনাকে অন্য কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। এই পিল খাওয়ার পরে আপনাদের নানা রকম সমস্যা হতে পারে যেমন অস্বাভাবিক মাসিক হতে পারে সেজন্য আপনাকে সতর্ক থাকতে হবে। 

এই ওষুধ সেবনের ফলে আপনার তলপেটে ব্যথা অনুভব হতে পারে শরীর দুর্বল হতে পারে মাথা ব্যথা হতে পারে এবং জরায়ুতে নানা রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে সেজন্য চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করা উচিত এবং অতিরিক্ত ব্যবহার করা উচিত নয় তাহলে এই সকল সমস্যাগুলো দেখা দেবে। এমার্জেন্সি জন্ম নিয়ন্ত্রণ এমন যেটা সেবনের ফলে আপনি নিশ্চিন্তভাবে থাকতে পারেন।  নোরেক্স 1 ফিল অন্য যেসব জন্ম নিয়ন্ত্রণ করন ওষুধ রয়েছে তাদের থেকে বেশ ভালো আপনি এটা সেবন করতে পারেন। 

অনেক মানুষ এ সকল বিষয়গুলো সম্পর্কে না জেনে অতিরিক্ত বাচ্চা কনসিভ করে ফেলে যার ফলে জনসংখ্যা বৃদ্ধি পায় সেজন্য প্রতিটা মানুষের এই সকল বিষয়গুলোর ওপর সঠিক জ্ঞান থাকা প্রয়োজন। আপনি যখন এই সকল ওষুধ সেবন করবেন তখন আপনাকে অতিরিক্ত পানি খেতে হবে এবং প্রতিদিন খাদ্যের তালিকায় কিছু পুষ্টিকর খাবার রাখতে হবে তা না হলে আপনার শরীর দুর্বল হয়ে পড়বে এবং নানা রকম রোগ আপনার শরীরে চলে আসবে।

বর্তমানে আরো নানারকম পিল রয়েছে যেগুলো খেলে নানারকম পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। আপনার নানা রকম প্রক্রিয়ার মাধ্যমে জন্ম নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন যেমন কিছু কিছু ব্যবস্থা রয়েছে যেগুলো দীর্ঘস্থায়ী কয়েক বছরের জন্য আপনারা সেই সকল পদ্ধতি গুলো ব্যবহার করতে পারেন। এই সকল পদ্ধতি গুলো একদম নিরাপদ হয় সেজন্য আপনি নিশ্চিন্তে ভাবে জীবন যাপন করতে পারবেন যদি এই সকল পদ্ধতি গুলো এপ্লাই করতে পারেন। 

এই ধরনের পিল আপনি যে কোন ফার্মেসিতে পাবেন তাই আপনারা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে নাম জেনে নিন এবং যেকোনো সময় যেকোনো ফার্মেসিতে গিয়ে কিনে নিতে পারবেন এবং ব্যবহার করতে পারবেন যেকোনো সময়। এই ওষুধ আপনি সবসময় সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন এবং সংরক্ষকের জন্য আপনাকে সবসময় নির্ধারিত প্যাকেটে রাখতে হবে। 

এ সকল ওষুধ গুলো সব সময় আপনাকে শুষ্ক এবং ঠান্ডায় স্থানে রাখতে হবে চোখে দেখা যায় এমন কোন অবনতি বা পরিবর্তন  বড়িতে লক্ষণ দেখা দিলে আপনার ফার্মেসিস্ট কে ফেরত দিতে হবে কারণ সেটা নষ্ট হয়ে গিয়েছে। আপনি যদি নষ্ট ওষুধ খান তাহলে আপনার বেবি কনসিভ হয়ে যাবে সেদিকে আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে এবং সব সময় সঠিক পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে।তাই আপনি যদি নিরাপদে থাকতে চান আপনাকে সব সময় সতর্ক থাকতে হবে এবং সবকিছু জেনে বুঝে গ্রহণ করতে হবে তবে আপনি সুস্থ থাকতে পারবেন এবং ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কোন ওষুধ সেবন করবেন না। 

আরো দেখুন

সম্পর্কিত লেখা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *